অন্তঃক্ষরা ও বহিঃক্ষরা গ্রন্থির পার্থক্য আলোচনা কর

হ্যালো বন্ধুরা, আজকে আমরা অন্তঃক্ষরা ও বহিঃক্ষরা গ্রন্থির পার্থক্য কি কি তা নিয়ে আলোচনা করছি ।

অন্তঃক্ষরা ও বহিঃক্ষরা গ্রন্থির পার্থক্য আলোচনা কর

অন্তঃক্ষরা ও বহিঃক্ষরা গ্রন্থির পার্থক্য

অন্তঃক্ষরা গ্রন্থিবহিঃক্ষরা গ্রন্থি
অন্তঃক্ষরা গ্রন্থির নালি থাকে নাবহিঃক্ষরা গ্রন্থির নালি থাকে
অন্তঃক্ষরা গ্রন্থি থেকে হরমোন নিঃসৃত হয়বহিঃক্ষরা গ্রন্থি থেকে ঘাম, রস ইত্যাদি নিঃসৃত হয়
এইসব গ্রন্থির ক্ষরণ গ্রন্থির বাইরে নিঃসৃত হয় না, ব্যাপন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে রক্তে মিশে যায় এই সব গ্রন্থির ক্ষরণ নালীর মাধ্যমে গ্রন্থির বাইরে আসে
অন্তঃক্ষরা গ্রন্থির উদাহরণ হল – পিটুইটারি, থাইরয়েড ইত্যাদিবহিঃক্ষরা গ্রন্থির উদাহরণ হল যকৃত, লালাগ্রন্থি ইত্যাদি
যেসব গ্রন্থি থেকে হরমোন নিঃসৃত হয়ে রক্ত বা লসিকার মাধ্যমে দেহের বিভিন্ন স্থানে প্রেরিত হয়, সেই সব গ্রন্থিকে অন্তঃক্ষরা গ্রন্থি বলে নালীযুক্ত যেসব গ্রন্থির নিঃসারক রস নালীর মাধ্যমে রক্তে, লসিকায় অথবা বিভিন্ন অঙ্গে নিঃসৃত হয় তাদের বহিঃক্ষরা গ্রন্থি বলে

উপরোক্ত টেবিল টি অন্তঃক্ষরা ও বহিঃক্ষরা গ্রন্থির পার্থক্য নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে । আশা করি পোস্ট টি আপনাদের খুব কাজে লাগবে ।

এর আগের পোস্ট এ আমরা বহিঃক্ষরা গ্রন্থি কাকে বলে? | বহিঃক্ষরা গ্রন্থির গুরুত্ব কি? এবং অন্তঃক্ষরা গ্রন্থি কাকে বলে | অন্তঃক্ষরা গ্রন্থির গুরুত্ব কি তা নিয়ে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করেছিলাম ।

Leave a Comment