গ্রিন হাউস গ্যাস কি? গ্রিন হাউস গ্যাসের প্রভাব লেখ

হ্যালো বন্ধুরা, আজকে আমরা গ্রিন হাউস গ্যাস কি অথবা গ্রিন হাউস গ্যাস কাকে বলে এবং গ্রিন হাউস গ্যাসের প্রভাব কি কি তা নিয়ে আজ আমরা বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করছি ।

গ্রিন হাউস গ্যাস কি? গ্রিন হাউস গ্যাসের প্রভাব লেখ

গ্রিন হাউস গ্যাস কি

বায়ুমণ্ডলে উপস্থিত যেসব গ্যাসীয় পদার্থের আবরণ পৃথিবীকে আচ্ছাদনে ঢেকে রেখে পৃথিবী পৃষ্ঠ হতে বিকিরিত তাপকে মহাশূন্যে ফিরে যেতে বাধা দেয় এবং ভূপৃষ্ঠ ও তৎসংলগ্ন বায়ুমণ্ডলকে উত্তপ্ত রাখে তাদের গ্রিন হাউস গ্যাস বলে ।

গ্রিন হাউস গ্যাস কিভাবে সৃষ্টি হয়

পরিবেশ দূষণের ফলে কার্বন ডাই অক্সাইড, জলীয় বাষ্প, মিথেন এবং জলীয় বাষ্পের প্রভাবে গ্রীন হাউস গ্যাসের সৃষ্টি হয় । গ্রিন হাউস গ্যাসে কার্বন ডাই অক্সাইড এর মাত্রাই সবচেয়ে বেশী থাকে ।

গ্রিন হাউস গ্যাসের প্রভাব

গ্রিন হাউস গ্যাসে কার্বন ডাই অক্সাইড (CO2) এর পরিমাণ শতকরা ৫০ ভাগ এর ও বেশী থাকে । আমরা যেভাবে অরন্য ধংস করে চলেছি তার ফলে বাতাসে কার্বন ডাই অক্সাইড এর পরিমাণ উদ্বেগজনক ভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে । বাতাসের কার্বন ডাই অক্সাইড সালোকসংশ্লেষ প্রক্রিয়ায় ব্যাবহৃত হয় এবং সমুদ্রে জলে প্রচুর পরিমাণে কার্বন ডাই অক্সাইড (CO2) দ্রবীভূত থাকে । কিন্তু সমুদ্রে দূষণের পরিমাণ বৃদ্ধি পাওয়ায় কার্বন ডাই অক্সাইড দ্রবীভূত হতে পারছে না যার ফলে স্বাভাবিক ভাবেই বাতাসে কার্বন ডাই অক্সাইড এর মাত্রা বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং বায়ুমণ্ডলের তাপমাত্রা বেড়েই চলেছে ।

বায়ুমণ্ডলের তাপমাত্রা বাড়ায় সমুদ্রের জলস্তর বেড়ে চলেছে এছাড়া গ্রিন হাউস গ্যাসের প্রভাবে ওজন স্তর ধীরে ধীরে ধংস হচ্ছে ।

তাই অতিলম্বে আমাদের গ্রিন হাউস গ্যাসের প্রভাব যাতে না বাড়ে সেদিকে নজর দিতেই হবে ।

মিথেন (CH4) গ্যাস গ্রিন হাউস গ্যাসের সৃষ্টির জন্য ভীষণ ভাবে দায়ী । কার্বন ডাই অক্সাইড গ্যাস এর প্রভাব বৃদ্ধির ফলে মিথেন গ্যাসকে বাতাসে বিনষ্ট হতে দেয় না । মিথেন গ্যাস কার্বন ডাই অক্সাইড গ্যাসের চেয়েও অধিক সক্রিয় ।

নাইট্রোজেন ও অক্সিজেন গ্রীন হাউস গ্যাস নয় কেন

বায়ুমণ্ডলের যে সকল গ্যাস তাপীয় অবহেলিত সীমার মধ্যে বিকরিত শক্তি শোষণ ও নির্গত করে সে সকল গ্যাসকে গ্রীন হাউস গ্যাস বলে । এটি গ্রিনহাউস গ্যাসের মৌলিক কারণ । নাইট্রোজেন ও অক্সিজেন এর মধ্যে এই ধর্ম না থাকায় নাইট্রোজেন ও অক্সিজেন গ্রীন হাউস গ্যাস নয় ।

গ্রীন হাউস ইফেক্ট এর পরিণতি কি

গ্রীন হাউস গ্যাসগুলো পৃথিবীতে সূর্যের আলো আসতে বাধা দেয় না কিন্তু পৃথিবী থেকে সূর্যের বিকীর্ণ তাপ ফেরত যেতে বাধা দেয় যার ফলে স্বাভাবিক ভাবেই পৃথিবীপৃষ্ঠের উষ্ণতা বৃদ্ধি পায় । গ্রীন হাউস গ্যাসের প্রভাবে গড় উষ্ণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং যার ফলে বরফ প্রতিনিয়তই গলে চলেছে ও সমুদ্রের জলস্তর ও বৃদ্ধি পাচ্ছে । এছাড়া বাতাসে দূষণের পরিমাণ ও বাড়ছে ।

আরও পড়ুন –

ধাতু ও অধাতুর মধ্যে পার্থক্য কি কি?

অধাতু কাকে বলে | অধাতুর বৈশিষ্ট্য লেখ

স্কেলার রাশি ও ভেক্টর রাশির পার্থক্য আলোচনা কর

Leave a Comment