তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ কাকে বলে উদাহরণ দাও

বন্ধুরা, আজকে আমরা তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ কাকে বলে এবং তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ গুলি কি কি তা নিয়ে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করছি । পৃথিবীতে অসংখ্য প্রাকৃতিক ও রাসায়ানিক ভাবে সৃষ্ট তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ রয়েছে ।

তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ কাকে বলে

তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ কাকে বলে

বিভিন্ন মৌলের যে সমস্ত আইসোটোপ ভিন্ন ধরনের রশ্মি (আলফা, বিটা, গামা) বিকিরণ করে অন্য মৌলের পরমাণুতে পরিণত হয় তাদেরকে তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ বলে ।

তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ এর উদাহরণ

এখনো পর্যন্ত ৩০০০ টির এও বেশী তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ পাওয়া গেছে । এই তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ গুলি প্রকৃতিতে সৃষ্ট এবং কিছুগুলি পরীক্ষাগারে বানানো হয়েছে ।

চিকিৎসা ক্ষেত্রে তেজস্ক্রিয় আইসোটোপের ব্যবহার কিভাবে করা হয় ?

চিকিৎসা ক্ষেত্রে টিউমার এর উপস্থিতি নির্ণয় করা ও টিউমার নিরাময়ে তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ এর ব্যাবহার করা হয় । এছাড়া গামা রশ্মি নিক্ষেপ করে ক্যান্সার কোষকলাকে ধ্বংস করতে ও সাহায্য করে ।

কার্বনের তিনটি আইসোটোপের নাম লেখ ?

কার্বনের তিনটি আইসোটোপ হল – সি 12 , সি 13, সি 14

14c আইসোটোপের ব্যবহার

14c আইসোটোপ এর ব্যাবহার বিভিন্ন কাজে ব্যাবহার করা হয় যেমন – কার্বন-১৪ দিয়ে কোনো বিশেষ প্রকারের তেজষ্ক্রীয় কার্বন কোনো বস্তু কতটুকু ধারণ করেছে, তার ভিত্তিতে প্রত্নবস্তুর বয়স নির্ধারণ করা যায়। এছাড়া তেজস্ক্রিয় কার্বনের সাহায্যে বহু পুরানো বস্তুর বয়স নির্ণয় করা যায় ।

আজকে আমরা তেজস্ক্রিয় আইসোটোপ এর বিভিন্ন প্রশ্ন উত্তর নিয়ে আলোচনা করলাম । পোস্ট টি যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে পোস্ট টি নিজেদের বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন ।

আরও পড়ুন –

রাসায়নিক বন্ধন কাকে বলে? রাসায়নিক বন্ধন কয় প্রকার ও কি কি?

ধাতু ও অধাতুর মধ্যে পার্থক্য কি কি?

আভোগ্রেডোর সংখ্যা কাকে বলে | আভোগ্রেডোর সূত্র

অধাতু কাকে বলে | অধাতুর বৈশিষ্ট্য লেখ

Leave a Comment