বিভক্তি কাকে বলে? বিভক্তি কয় প্রকার ও কি কি?

হ্যালো বন্ধুরা, আজকে আমরা বিভক্তি কাকে বলে এবং বিভক্তি কয় প্রকার ও কি কি তা নিয়ে আলোচনা করছি ।

বিভক্তি কাকে বলে? বিভক্তি কয় প্রকার ও কি কি?

বিভক্তি কাকে বলে

যেসব বর্ণ বা বর্ণসমষ্টি শব্দের শেষে যুক্ত হয়ে ঐই শব্দটিকে বাক্যে ব্যাবহারের উপযোগী করে তোলে সেই বর্ণ বা বর্ণসমষ্টিকে বিভক্তি বলে ।

যেমন – রাম ফুটবল খেলছে, এক্ষেত্রে ‘ছে’ হল বিভক্তি ।

বিভক্তি কয় প্রকার ও কি কি

বিভক্তি ২ প্রকার – ১) শব্দ বিভক্তি ২) ক্রিয়া বিভক্তি

শব্দ বিভক্তি

শব্দের শেষে যেসব বর্ণ বা বর্ণসমষ্টি যুক্ত হয়ে পদের সংখ্যা বৃদ্ধি করে সেই সব বর্ণ বা বর্ণসমষ্টিকে শব্দ বিভক্তি বলে ।

যেমন – রাম + এর = রামের, নদী + তে = নদীতে ।

ক্রিয়া বিভক্তি

ক্রিয়া বা ধাতুর শেষে যে বিভক্তি যুক্ত হয় তাকে ক্রিয়া বিভক্তি বলে ।

যেমন – পড় + এ = পড়ে

ধাতু বিভক্তি কাকে বলে

ধাতুর সঙ্গে যে বিভক্তি যুক্ত হয় তাকে ধাতু বিভক্তি বলে ।

পড় + আ , এখানে পড় ধাতুর সঙ্গে আ ধাতু বিভক্তি যুক্ত হয়ে ক্রিয়াপদ সৃষ্টি করে ।

শূন্য বিভক্তি কাকে বলে

যে শব্দ বিভক্তি পদের সঙ্গে যুক্ত হয়ে শব্দকে পদে পরিণত করে কিন্তু নিজে মূল শব্দটির কোন পরিবর্তন না ঘটিয়ে অপ্রকাশিত অবস্থায় থাকে তাকে শূন্য বিভক্তি বলে।

সাধিত ধাতু কাকে বলে

কোনো মৌলিক ধাতু কিংবা নাম শব্দের সাথে প্রত্যয় যুক্ত হয়ে যে ধাতু গঠিত হয় তাকে সাধিত ধাতু বলে।

আরও পড়ুন –

সংকর ধাতু কাকে বলে

অ্যাক্সন কাকে বলে ও ডেনড্রন কাকে বলে?

Leave a Comment