ভারতীয় কৃষিতে জলসেচের প্রয়োজনীয়তা ও কারণ

হ্যালো বন্ধুরা, আজকে আমরা ভারতীয় কৃষিতে জলসেচের প্রয়োজনীয়তা কি তা নিয়ে আজকের এই পোস্টে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করছি । মাধ্যমিক এর ভূগোল পরীক্ষায় এই প্রশ্নটি প্রায়ই এসে থাকে তাই প্রশ্নটি মন দিয়ে পড়ুন এবং বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন ।

এর আগের পোস্টে আমরা ভারতের জলবায়ুর বৈশিষ্ট্য কি তা নিয়ে আলোচনা করেছিলাম ।

ভারতীয় কৃষিতে জলসেচের প্রয়োজনীয়তা ও কারণ

ভারতীয় কৃষিতে জলসেচের প্রয়োজনীয়তা

কৃষিজমির উর্বরতা, উৎপাদনের পরিমাণ বৃদ্ধি ও বহুফসলী চাষের পরিমাণ বৃদ্ধি প্রভৃতির জন্য জলসেচের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ । ভারতের কৃষিজমিতে জলসেচের প্রয়োজনীয়তা অনেক বেশী । কোন জমিতে অধিক পরিমাণ ফসল উৎপাদনের জন্য জলসেচের প্রয়োজন হয় । ভারতের মোট কৃষিজমির প্রায়ই ৪৬% জমিতে কৃত্তিম উপায়ে জলসেচ করা হয় । ভারতের কৃষিজমিতে ফলনের পরিমাণ বৃদ্ধি করতে জলসেচের প্রয়োজনীয়তা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ।

ভারতীয় কৃষিতে জলসেচের প্রয়োজনীয়তার কারণ গুলি হল-

অনিশ্চিত বৃষ্টিপাত- ভারতবর্ষ মৌসুমি জলবায়ুর অন্তর্ভুক্ত একটি দেশ । ভারতে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ খুব একটা বেশী না এবং ভারতে সব অঞ্চলে প্রায় একই রকম বৃষ্টিপাত ও হয় না । অধিক পরিমাণ বৃষ্টি বর্ষা ঋতুতেই হয়ে থাকে । ভারতে প্রায় ৭০% বৃষ্টিপাত বর্ষাকালেই ঘটে থাকে । এছাড়া দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ুর আগমন তাড়াতাড়ি হলে বর্ষা তাড়াতাড়ি আসে এবং মৌসুমি বায়ুর আগমন দেরীতে হলে বর্ষা আসতে দেরী হয় । ভারতে বৃষ্টিপাতের এই অনিশ্চয়তা এর কারণেই ভারতীয় কৃষিজমিতে জলসেচের প্রয়োজন হয় ।

মৃত্তিকার জলধারণ ক্ষমতা- বিভিন্ন মৃত্তিকার জলধারণ ক্ষমতা বিভিন্ন হয়ে থাকে । যেমন লোহিত মৃত্তিকা এবং ল্যাটেরাইট মৃত্তিকার জলধারণ ক্ষমতা অনেক কম তাই ওইসব মাটিতে জলসেচের প্রয়োজনীয়তা খুব বেশী, তাছাড়া চাষ করা অনেক কঠিন হয়ে ওঠে ।

বৃষ্টিপাতের অসম বণ্ঠন- ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলের বৃষ্টিপাতের পরিমাণ বিভিন্ন । ভারতের হরিয়াণা, পাঞ্জাব, রাজস্থান, গুজরাটের উত্তর ও পশ্চিমাংশ প্রভৃতি অঞ্চলে অঞ্চলে বার্ষিক বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ৭৫ সেন্টিমিটার এর চেয়েও কম । তাই সেইসব জায়গায় জলসেচের প্রয়োজনীয়তা খুবই বেশী ।

আধুনিক কৃষিপদ্ধতির ব্যাবহার- সবুজ বিপ্লবের পর থেকে কৃষির বিকাশে এক আমূল পরিবর্তন আসে । আধুনিক কৃষিপদ্ধতি, উচ্চফলনশীল বীজ, কীটনাশকের পরিমাণ বৃদ্ধি পায় । এই ফসলগুলিকে সঠিক ভাবে বিকাশ করতে উচিত উপায়ে জলসেচ করার প্রয়োজন হয় ।

উচ্চফলনশীল চাষ- উচ্চফলনশীল ফসল যেমন পাট, আখ, তুলা, রাবার প্রভৃতি উচ্চফলনশীল বীজ চাষ করার জন্য অধিক পরিমাণ জলের প্রয়োজন হয় । এই অধিক পরিমাণ জল জলসেচ থেকেই পাওয়া সম্ভব ।

খাদ্যের উৎপাদন বৃদ্ধি- ভারত একটি জনবহুল দেশ । ভারত পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ তাই এই বিশাল জনসংখ্যার দেশে খাদ্যের উৎপাদন বৃদ্ধি করা জরুরি । আর খাদ্যের উৎপাদন এর পরিমাণ বৃদ্ধি করতে হলে বৃষ্টিপাতের ওপর নির্ভর করলে হবে না, আমাদের জলসেচের দিকেই নজর দিতে হবে ।

শীতকালীন বৃষ্টিপাত- করমণ্ডল উপকূলের দক্ষিনাংশ এবং উত্তর পশ্চিম ভারতের কিছু অংশ ছাড়া ভারতের আর কোথায় শীতকালীন বৃষ্টিপাত হয় না । তাই শীতকালীন শস্য যেমন- গম, ডাল, তৈলবীজ প্রভৃতির জন্য জলসেচেই একমাত্র ভরসা ।

আরও পড়ুন-

এশিয়ার জলবায়ুর বৈচিত্রের কারণগুলি লেখ

নদীর সঞ্চয় কাজের ফলে সৃষ্ট ভূমিরূপ গুলি আলোচনা কর

wbupdates.in একটি শিক্ষামূলক ব্লগ পোস্ট । এখানে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক স্তরের সমস্ত বিষয়ের প্রশ্নের উত্তর আলোচনা করা হয় । আপনারা চাইলে আমাদের ওয়েবসাইট টি বুকমার্ক করে নিবেন যাতে সমস্ত আপডেট পেতে সুবিধে হয় ।

Leave a Comment