রক্তকণিকা কাকে বলে? রক্ত কণিকা কয় প্রকার ও কি কি ?

হ্যালো, বন্ধুরা আজকে আমরা রক্তকণিকা কাকে বলে এবং রক্তকণিকা কয় প্রকার ও কি কি তা নিয়ে আলোচনা করছি । এই প্রশ্নটি জীব বিজ্ঞান থেকে একটি খুব গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন ।

রক্তকণিকা কাকে বলে? রক্ত কণিকা কয় প্রকার ও কি কি ?

রক্তকণিকা কাকে বলে

রক্তে ভাসবান বিভিন্ন ধরনের কোষকে রক্ত কণিকা বলে । এককথায়, রক্তের কোষগুলিকেই রক্তকণিকা বলে ।

রক্তকণিকা কয় প্রকার ও কি কি

রক্তকণিকা ৩ প্রকার যথা । ১) লোহিত রক্তকণিকা ২) শ্বেত রক্তকণিকা ৩) অণুচক্রিকা

লোহিত রক্তকণিকা কাকে বলে

দ্বি – অবতল,নিউক্লিয়াসবিহীন, চাকতি আকৃতির এবং লাল বর্ণের কণিকাকে লোহিত রক্তকণিকা বলে । একজন প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষের প্রতি ঘন মিলিমিটার বা মাইক্রোলিটার রক্তে লোহিত কণিকার সংখ্যা হল গড়ে 5 মিলিয়ন এবং প্রাপ্তবয়স্ক স্ত্রীলোকেদের রক্তে লোহিত কণিকার সংখ্যা হল 4.5 মিলিয়ন

লোহিত রক্ত কণিকার কাজ কি

লোহিত রক্তকণিকার কাজ হল শরীরের বিভিন্ন অংশে রক্তের মাধ্যমে অক্সিজেন পৌঁছে দেওয়া ।

শ্বেত রক্তকণিকা কাকে বলে

বর্ণহীন, নিউক্লিয়াসযুক্ত এবং তুলনামূলকভাবে স্বল্পসংখ্যক ও বৃহদাকার এবং যারা দেহকে সংক্রমণ থেকে রক্ষা করতে সাহায্য করে তাকে শ্বেতকণিকা বলে।

প্রতি মিলিমিটার রক্তে শ্বেত কণিকার সংখ্যা হল 6000-8000 । শ্বেত রক্তকণিকার আয়ু 1 থেকে 15 দিন

শ্বেত রক্তকণিকার কাজ কি

শ্বেত রক্তকণিকার কাজ হল দেহকে রোগ প্রতিরোধ এ সাহায্য করা ।

শ্বেত রক্ত কণিকার আয়ুষ্কাল কত দিন

শ্বেত রক্ত কণিকার আয়ুষ্কাল 120 দিন ।

অণুচক্রিকা কাকে বলে

রক্তের যে কণিকা রক্ত সঞ্চালন করতে সাহায্য করে তাকে অনুচক্রিকা বলে। অনুচক্রিকা দেখতে গোলাকার, ডিম্বাকার অথবা রড আকারের ।

প্রতি ঘন মিলিমিটার রক্তের অনুচক্রিকা সংখ্যা হল 2.5 লক্ষ থেকে 5 লক্ষ । অনুচক্রিকা আকারে গোলাকার, ডিম্বাকার এবং বেম আকৃতি বিশিষ্ট হয় এবং অণুচক্রিকার আয়ু মাত্র ৩ দিন ।

আরও পড়ুন –

যকৃত কি? যকৃত এর কাজ কি কি?

উদ্ভিদ কোষ ও প্রাণী কোষের মধ্যে পার্থক্য কি?

রেচনতন্ত্র কাকে বলে? রেচনতন্ত্রের কাজ কি?

পিটুইটারি গ্রন্থি কি | পিটুইটারি গ্রন্থির কাজ কি

Leave a Comment