রজন কাকে বলে ? রজনের প্রকারভেদ ও ব্যাবহার ?

আজকে আমরা, রজন কাকে বলে, রজনের প্রকারভেদরজনের ব্যাবহার সম্পর্কে আলোচনা করছি ।

রজন কাকে বলে

রজন কাকে বলে ?

কোন কারণে উদ্ভিদের অঙ্গ আঘাত পেয়ে বা প্রাকৃতিক কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হলে যে নাইট্রোজেন বিহীন এবং জলে অদ্রাব্য হলুদ বর্ণের রেচন পদার্থ নিঃসরণ করে তাকে রজন বলা হয় ।

উদাহরণ – ধুনা, গালা, হিং তারপিন তেল ইত্যাদি ।

রজনের প্রকারভেদ

রজনের প্রকারভেদ গুলি নীচে দেওয়া হল –

ওলিও রজন

উৎস – পাইন

উদাহরণ – তারপিন তেল

অর্থনৈতিক গুরুত্ব – তারপিন তেল ওষুধ হিসেবে ব্যাবহার করা হয় এছাড়া কাঠ পালিশ এর কাজে ব্যাবহার করা হয়ে থাকে ।

গদ রজন

উৎস – শাল, হিং ইত্যাদি

উদাহরণ – ধুনা, হিং

অর্থনৈতিক গুরুত্ব – ধুনা – বিভিন্ন পুজো তে কাজে লাগে ।

হিং – খাবারে ব্যাবহার করা হয় ।

রজনের অর্থনৈতিক গুরুত্ব

১) ধুনা – ধুনা একপ্রকার এর রজন যা পূজা পার্বণে ব্যাবহার করা হয় এছাড়া সুগন্ধি ধুপকাঠি হিসেবে বাড়ীতে ও ব্যাবহার করা হয়ে থাকে ।

২) তারপিন তেল – তারপিন তেল কাঠের পালিশের কাজে ব্যাবহার করা হয় । এছাড়া রঙ চুন ইত্যাদি তেও ব্যাবহার করা হয় ।

৩) হিং – সুগন্ধি মশলা তৈরি তে ব্যাবহার করা হয় ।

৪) প্রসাধনী শিল্পে, ওষুধ তৈরিতে, বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম ইত্যাদি তৈরিতে রজনের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ ।

৫) রাবার ও প্লাস্টিক শিল্পে তেও রজনের ব্যাবহার করা হয় ।

৬) ইনসুলেটর তৈরি করতে ব্যাবহার করা হয় ।

আরও পড়ুন

ডারউইনের বিবর্তন মতবাদ

গ্রন্থি কন্দ কাকে বলে, স্ফীত কন্দ কাকে বলে

সাইটোপ্লাজম কাকে বলে? সাইটোপ্লাজমের বৈশিষ্ট্য আলোচনা কর

Leave a Comment