সৌরভ গাঙ্গুলীর জীবনী | সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় এর জীবন কাহিনী

হ্যালো বন্ধুরা, আজকে আমরা সৌরভ গাঙ্গুলীর জীবনী অথবা সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় এর জীবন কাহিনী নিয়ে আজকের এই পোস্ট এ আলোচনা করছি । সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় যিনি মহারাজা নামে পরিচিত ভারতীয় দলের প্রাক্তন ক্রিকেটার তথা ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন জনপ্রিয় অধিনায়ক । সৌরভ গাঙ্গুলি 2000 সাল থেকে 2005 সাল পর্যন্ত ভারতীয় দলের ক্যাপ্টেনের ভার সামলেছেন । এই বিখ্যাত ক্রিকেটার বাঙালি জাতির একটা ইমোশেন ।

সৌরভ গাঙ্গুলীর জীবনী

সৌরভ গাঙ্গুলীর জীবনী

সৌরভ গাঙ্গুলীর জন্ম ১৯৭২ সালের ৮ই জুলাই কলকাতার বেহালায় একটি প্রতিষ্ঠিত ঘরে জন্মগ্রহণ করেছিলেন । তার বাবার নাম চণ্ডীদাস গাঙ্গুলী, মায়ের নাম নিরুপা গাঙ্গুলী ও দাদা স্নেহাশীস গাঙ্গুলী ও ছিলেন একজন ক্রিকেট খেলোয়াড় । সৌরভ গাঙ্গুলীর বাবা চণ্ডীদাস গাঙ্গুলী ও ছিলেন ক্রিকেট এর খুব বড় ভক্ত তাই তিনি তার ছেলেকেও ক্রিকেটার হিসেবেই দেখতে চেয়েছিলেন । ছোটবেলা থেকেই সে ক্রিকেট খেলায় অংশ নিতে শুরু করেছিল । সৌরভ এক উচ্চবিত্ত পরিবারেই জন্মগ্রহণ করেছিলেন ।

নামসৌরভ গাঙ্গুলী
বাবার নামচণ্ডীদাস গাঙ্গুলী
জন্ম তারিখ১৯৭২ সালের ৮ই জুলাই
জন্মস্থানকলকাতা, বেহালা
পেশাক্রিকেটার
উচ্চতা৫ ফুট ১১ ইঞ্চি
বয়স৪৯ বছর (২০২২ অনুসারে)
শহরকলকাতা
ব্যাটিং এর ধরণবামহাতি
বোলিং এর ধরণডানহাতি
প্রথম ওয়ান ডে ইন্টারন্যাশনাল অভিষেক১১ই জানুয়ারী ১৯৯২
প্রথম টেস্ট ইন্টারন্যাশনাল অভিষেক ২০ শে জুন ১৯৯৬
শেষ টেস্ট৬ ই নভেম্বর ২০০৮ অস্ট্রেলিয়া

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় এর স্কুল জীবন

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় এর স্কুল জীবন শুরু হয় সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজিয়েট স্কুলে এবং সেই স্কুলে থাকা ক্রিকেট একাডেমি তেই তিনি ক্রিকেট খেলা শুরু করেন । ছোটবেলা থেকেই সৌরভ একজন মেধাবী ছাত্র ছিলেন । তার ক্রিকেট জীবন তার শৈশব কাল থেকেই শুরু হওয়ায় তার পড়াশুনা বেশী দূর পর্যন্ত করতে পারেনি । কলকাতা ইউনিভার্সিটি তে তিনি তার কলেজ জীবন ও শুরু করেছিলেন ।

সৌরভ গাঙ্গুলীর পরিবার

বাবার নাম- চণ্ডীদাস গাঙ্গুলী

মায়ের নাম- নিরুপা গাঙ্গুলী

দাদা- স্নেহাশীস গাঙ্গুলী

বোন- জানা নেই

স্ত্রী- ডোনা গাঙ্গুলী

মেয়ে- সানা গাঙ্গুলী

ধর্ম- হিন্দু

জাতি- ব্রাহহ্মন

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের ইন্টারন্যাশনাল অভিষেক

সৌরভ এর প্রথম ইন্টারন্যাশনাল অভিষেক হয় ১৯৯১-১৯৯২ সালের অস্ট্রেলিয়া সিরিজে । অস্ট্রেলিয়া সিরিজে সৌরভে প্রথম দুই ম্যাচে বসিয়ে রাখা হয় এবং পরবর্তী ম্যাচে খেলার সুযোগ পেলে ৩ রান করে আউট হয়ে যান । এর পরবর্তী ম্যাচ গুলিতে সৌরভ একদম সহযোগিতা পাননি, তাকে পরবর্তী ম্যাচ গুলি থেকে বাতিল করে দেওয়া হয় ।

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের প্রথম টেস্ট অভিষেক হয় ১৯৯৬ সালে ইংল্যান্ড সফরে । সে সময় ভারতীয় দলের নির্বাচক ছিলেন সম্বরণ বন্দ্যোপাধ্যায় । সম্বরণ বন্দ্যোপাধ্যায় এর বিপুল চেষ্টায় সৌরভ ইংল্যান্ড টেস্ট সিরিজে তার জায়গা করে নিতে পেরেছিল । ইংল্যান্ড সিরিজের প্রথম টেস্ট ম্যাচ টি ভারত হেরে গেছে এবং দ্বিতীয় ম্যাচে সৌরভ অভিষেক করেন এবং তার প্রথম টেস্ট ম্যাচ এই তিনি শতক করে সমালোচকদের মুখ বন্ধ করে দেয় । এর পর থেকেই সৌরভের জীবনে ক্রিকেটের সাফল্য আসতে শুরু করে এবং শেষ পর্যন্ত সৌরভ গাঙ্গুলী ভারতের জাতীয় দলের ক্যাপ্টেনের ভার ধরেন ২০০০ সাল থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত ।

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের একদিনের ম্যাচে সর্বোচ্চ রান

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে একদিনের ম্যাচে সর্বোচ্চ ১৮৩ রান করে একদিনের ম্যাচে সর্বোচ্চ রানের বিশ্বরেকর্ড করেন ।

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের আই পি এল কেরিয়ার

২০০৮ সাল থেকে আই পি এল এর শুরু হয় । IPL এর প্রথম সিজনে সৌরভ কলকাতা নাইট রাইডার্স এর হয়ে খেলেছিলেন এবং অধিনায়কত্ব ও করেছিলেন । এর পরের আই পি এল এ তাকে কলকাতা নাইট রাইডার্স থেকে বাদ দিয়ে দেওয়া হয় এবং পুণে সানরাইজারস এর পক্ষ থেকে ম্যাচ খেলে যদিও সেই বর্ষে তিনি মাত্র বেশ কয়েকটি ম্যাচ ই খেলেছিলেন ।

সৌরভ গাঙ্গুলীর কেরিয়ার জীবন অনেক ওঠা নামার মধ্য দিয়েই গেছে । ২০০৫ সালে দল থেকে বাদ পড়া এবং ভারতের কোচ গ্রেগ চ্যাপেল এর সঙ্গে সম্পর্ক খারাপ হওয়া । গ্রেগ চ্যাপেল এর জন্যই মূলত তার অধিনায়কত্ব গিয়েছিল । ২০০৭ সালে সৌরভ শেষ একদিনের ম্যাচ খেলেন এবং ২০০৮ সালে শেষ টেস্ট ম্যাচ ।

বর্তমানে তার একটি ফুটবল ক্লাব ও আছে যার নাম অ্যাটলেটিকো ডি কলকাতা সৌরভ এর এই টিম গত ২০১৪ সাল থেকে আই এস এল এ খেলছে ।

সৌরভ গাঙ্গুলীর কিছু রেকর্ড ও অ্যাওয়ার্ডস

গাঙ্গুলী তার জীবনের প্রথম টেস্ট ম্যাচ এ শতক করেন ।

১৯৯৯ সালের আন্তর্জাতিক বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে তিনি একটি ম্যাচে সর্বোচ্চ রান হিসেবে ১৮৩ রান করেন ।

পর পর তিনটি শতরান করে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে রেকর্ড গড়ে তুলেন ।

সৌরভ গাঙ্গুলী ১৯৯৭ সালে অর্জুন অ্যাওয়ার্ডস ও ২০০৪ সালে পদ্ম শ্রী অ্যাওয়ার্ড এ ভূষিত হন ।

আরও পড়ুন-

গান্ধীজির ডান্ডি অভিযান এর সংক্ষিপ্ত বিবরণ দাও?

অন্তঃক্ষরা গ্রন্থি কাকে বলে | অন্তঃক্ষরা গ্রন্থির গুরুত্ব কি

গুগল পে একাউন্ট কিভাবে খুলবেন এবং ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট যুক্ত করবেন

Leave a Comment