হরমোন ও উৎসেচকের পার্থক্য

আজকে আমরা হরমোন ও উৎসেচকের পার্থক্য নিয়ে আলোচনা করছি ।

হরমোন কাকে বলে

প্রোটিন, অ্যামাইনো অ্যাসিড বা স্টেরয়েডধর্মী যে জৈব-রাসায়নিক পদার্থ, জীবদেহের কোনও বিশেষ কোষগুচ্ছ অথবা অন্তঃক্ষরা বা অনাল গ্রন্থি থেকে স্বল্পমাত্রায় ক্ষরিত হয়ে সাধারণত রক্ত, লসিকা ইত্যাদির মাধ্যমে উত্পত্তি স্থল থেকে দুরে শরীরের কোনও বিশেষ জায়গায় পরিবাহিত হয় এবং সেখানকার কলা-কোষের বিভিন্ন বিপাকীয় কাজের মধ্যে রাসায়নিক সমন্বয়সাধন করে, এবং কাজের শেষে নষ্ট হয়ে যায়, তাকেই হরমোন বলে ।

উৎসেচক কাকে বলে

সাধারণত প্রোটিন ধর্মী যে দ্রবণীয় জৈব অনুঘটক সজীব কোষে উৎপন্ন হয় কিন্তু ওই কোষের নিয়ন্ত্রণাধীনে না থেকে না না ধরনের রাসায়নিক বিক্রিয়াকে প্রভাবিত করে এবং বিক্রিয়ার শেষে নিজে অপরিবর্তিত থাকে, তাদের উৎসেচক বলে |

হরমোন ও উৎসেচকের পার্থক্য

পার্থক্যের বিষয়হরমোনউৎসেচক
১) ক্ষরণস্থলঅন্তঃক্ষরাগ্রন্থিবহিঃক্ষরাগ্রন্থি
২) রাসায়ানিক প্রকৃতিবিভিন্ন রাসায়ানিক প্রকৃতি বিশিষ্ট সর্বদাই প্রোটিন ধর্মী
৩) কার্যগত প্রকৃতিজৈব রাসায়ানিক প্রক্রিয়াসমূহকে প্রভাবিত করলেও ক্রিয়াশেষে বিনষ্ট ও দেহ থেকে অপসারিত হয় জৈব অনুঘটকরুপে সক্রিয়
৪) ক্রিয়াস্থলের অবস্থানসাধারণ উৎসস্থল থেকে দূরে ক্রিয়া করে উৎসস্থল অথবা দূরবর্তী কোনো স্থানে ক্রিয়া করে
৫) পুনর্ব্যবহার যোগ্যতাপুনর্ব্যবহার যোগ্যতা নেইপুনর্ব্যবহার যোগ্যতা আছে
৬) কোশপর্দার ভেদ্যতার পরিবর্তন সাধনঘটায়ঘটায় না
৭) কাজের ক্ষেত্রে পারস্পারিক নির্ভরশীলতাবিভিন্ন উৎসেচকের ওপর নির্ভরশীলঅন্তঃক্ষরাতন্ত্রের ওপর নির্ভরশীল নয়

আরও পড়ুন – প্রোজেস্টেরনের হরমোন এর উৎস ও কাজ

সম্পূর্ণ বিনামূল্যে পড়াশুনা করার জন্য আমাদের টেলিগ্রাম গ্রুপে যুক্ত হন

Leave a Comment